টাঙ্গাইলের জমি নিয়ে বিরোধের জেরে বোনকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ

0 33

নিউজ  স্রোত:

 

টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বাঘিল ইউনিয়নের সিটকীবাড়ী গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে চাচাতো বোনকে পিটিয়ে আহত করেছে প্রতিপক্ষ চাচাতো ভাই ও তার পরিবার। এঘটনায় টাঙ্গাইল মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। স্থানীয়সূত্রে জানা যায়, এ ব্যাপারে বাদী- বিবাদী উভয়পক্ষই টাঙ্গাইল মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে উল্লেখ আছে, মো.কাজিম উদ্দিন এর ছেলে শফিকুল ইসলাম (৩২), সমেজ হাজীর ছেলে মোকাদ্দেস (৩৫), বাহাদুল্লা ওরফে আফাজ উদ্দিন(৬০), ও আনোয়ার উভয় পিতা সমেজ আলী, এছাড়া কাজিম উদ্দিনের ছেলে আমিনুর(৩৫), আফাজ উদ্দিনের স্ত্রী মমতাজ (৫০), আনোয়ারের স্ত্রী জমিলা(৩২) আরমানের স্ত্রী সরবানু(৩৫) ও মোকাদ্দেস এর স্ত্রী বাসা এদের সবার বাড়ী সদর উপজেলার বাঘিল ইউনিয়নের সিটকীবাড়ী এলাকায়। বাদীর সংগে এদের সম্পর্ক চাচাতো সুমুন্দী ও ভাবী। জানাযায়, ওয়ারিশের জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে তাদের মধ্যে একটা বিরোধ চলে আসছিলো। এই বিরোধের জের ধরেই গত (২৩এপ্রিল-২০২১ইং,) বাদীর স্ত্রী সুফিয়া বেগম পৈত্রিক সুত্রে পাওয়া জমিতে হলুদ চাষ করতে গেলে বিবাদমান জমিতে এ মারামারির ঘটনাটি ঘটে। এসময় দেশীয় অস্ত্র, দা, সাবল, রড, বাশের লাটি ইত্যাদি দিয়ে বিবাদীগণ আমার স্ত্রীকে হত্যার উদ্যেশ্যে পিটিয়ে রক্তাক্ত করে। পরে আমার স্ত্রীর ডাক চিৎকারে আমার আরেক সুমন্দি তাকে বাচানোর জন্য এগিয়ে আসলে তাকেও মেরে রক্তাক্ত জখম করা হয়। এই ঘটনায় সুমন্দী সহ ৪ জন আহত হন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আমি আমার স্ত্রীকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করি। ওরা আমার স্ত্রীর গুপ্ত অংগের চারপাশে ও শরীরের বিভিন্ন জাগায় এলোপাথারী পিটাইয়া রক্তাক্ত জখম করেছে। আমার স্ত্রী এখন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। আমি প্রশাসনের কাছে তদন্ত সাপেক্ষে এর সঠিক বিচার দাবী করছি। এব্যাপারে বিবাদী আফাজ উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঐ জমি আমাদের,আমরা দুই বছর জাবত ভোগ দখল করে আসিতেছি ঐ দিন হঠাৎ করেই তার কয়েক জন লোক এসে আমাদের ঘরবাড়ী কুপিয়ে লন্ডভন্ড করে আমাদের আহত করেছে। এ বিষয়ে আমরা থানায় অভিযোগ করেছি পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। এব্যপারে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান আনছারী বলেন, আহত মহিলাকে আমি দেখেছি, তাকে খুব খারাপ ভাবে মেরে জখম করা হয়েছে। আমি প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে এর সঠিক বিচার দাবী করছি। এ বিষয়ে ঐ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম সোহাগ এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন মারামারির বিষয়টি আমার জানা নেই।

Leave A Reply

Your email address will not be published.