সরিষাবাড়ীতে চরাঞ্চলসহ ভুট্টা চাষে ভালো ফলনের আশা করছে স্থানীয় কৃষকরা

0 18

সরিষাবাড়ী প্রতিনিধি:

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় এবার চরাঞ্চলসহ বিভিন্ন স্থানে ভুট্টা চাষে ভালো ফলনের আশা করছে স্থানীয় কৃষকরা। আবহাওয়ার পরিবেশ ভুট্টা চাষের অনুকুলে থাকায় ভুট্টা ফলন ভালো হয়েছে। চারদিকে ভুট্টার সবুজের সমারোহ এখন মাঠে মাঠে ছেঁয়ে গেছে। এতে কৃষকের মুখে মনমুগন্ধকর রঙ্গিন হাসি ফুটে উঠেছে। আকাশ ছুয়া ’লাভবান’ স্বপ্নটা এবার পূরণ হবে বলে মনে করেন কৃষকরা। কৃষি বিভাগের পরামর্শে কৃষকরা এ লাভজনক ভুট্টা চাষাবাদে ঝুঁকে পড়েছে বলে জানা যায়।
কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এবার চলতি মৌসুমে উপজেলার ইউনিয়ন গুলোতে ভুট্টা চাষের জন্য লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ১হাজার ৬০০ হেক্টর জমি। এবার লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে ১হাজার ৯২০ হেক্টর জমিতে ভুট্টার চাষ করা হয়েছে। গত ডিসেম্বর মাসের মাঝামাঝি থেকে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে এই ভুট্টা চাষাবাদ করা হয়েছে। তবে পোগলদিঘা ইউনিয়নের চরাঞ্চলসহ আওনা, সাতপোয়া, কামরাবাদ, ভাটারা ইউনিয়ন চরাঞ্চলের শত শত ফসলি জমিতে এবার ভুট্টার চাষবাদ বেশি করা হয়েছে। আগামী মাসের তিন থেকে চার সপ্তাহের মধ্যে চাষাবাদকৃত এইসব ভুট্টা মাড়াই করে ঘরে তুলবে কৃষকরা।
স্থানীয় ভুট্টা চাষী আব্দুল মজিদ বলেন, আগের বছরের তুলনায় এবার ভুট্টার চেহারা অনেক ভালো। আমি ৬ বিঘা জমিতে ভুট্টার চাষ করেছি। সবুজে সমরোহ ভুট্টার চেহারা দেখে আমার মন ভরে যায়। আল্লাহর রহমতে কোন বালা মছিবত না হলে আমি ভালো ফলন পেয়ে লাভবান হবো।
এদিকে ভুট্টা চাষী শাহিন মিয়া ও তাজম আলী বলেন, আমি আগে অনেকের মত ধান চাষ বেশি করতাম কিন্তু এবার ভুট্টা চাষ বেশি করেছি। আমার খেতের ভুট্টার ফলন আগের তুলনায় অনেক বেশি, আশা করি এবার আমি লাভবান হবো। তাছাড়া আমি ৪টি গরু পালনের জন্য ঘাস হিসেবে ভুট্টার সবুজ বর্ন পাতা খাওয়াতে পারি। এতে গরু পালনের খরচ কম হয়।
পোগলদিঘা ইউনিয়নের মালিপাড়া চর এলাকার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এবং চরাঞ্চলের একজন আদর্শ কৃষক শামীম মিয়া জানান, এবার ভুট্টার বাজার ভাল থাকলে লাভবান হবে কৃষকেরা। আমি একজন শিক্ষক হয়ে ধানে চাষের তুলনায় ভুট্টা চাষ বেশি করেছি। বিশেষ করে শহরাঞ্চলে হলদে ও সোনালী রংঙ্গের পাকা ভুট্টার থোর (শীষ) বিক্রি করা হয় চড়া দামে। এছাড়া এ শীষ রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করা হয়। তাই তুলনামুলক এবার লাভবান হবে কৃষকরা।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আব্দুলাহ আল মামুন বলেন, আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ভুট্টার ফলন এবার ভালো হয়েছে। তাছাড়া ভুট্টা চাষের জন্য সব সময় কৃষি কর্মকর্তা নিয়োজিত রয়েছে। চলতি মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়েছে। তাই ভুট্টা চাষের আশানুরূপ ফলন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.