কালিহাতীতে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ইউপি চেয়ারম্যানসহ আহত ৪

0 8

কালিহাতী প্রতিনিধি:

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার গোহালিয়াবাড়ী ইউনিয়ন আ’লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে বুধবার (২০ জানুয়ারি) বিকালে পদ-পদবীকে কেন্দ্র করে স্থানীয় নেতাকর্মীদের দু’গ্রুপে ধাওয়া- পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উপজেলা আ’লীগের সদস্য ও ইউপি চেয়ারম্যান সহ চার নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। ফলে ওই ইউনিয়নের সম্মেলন পন্ড হয়ে যায়। আহতদের টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
জানাগেছে, বুধবার দুপুরে গোহালিয়াবাড়ী ইউনিয়ন আ’লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন শুরু হয়। স্থানীয় সংসদ সদস্য হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারির উপস্থিতে সম্মেলনের প্রথম পর্ব শেষে দ্বিতীয় পর্বে কাউন্সিল শুরু করা হয়। এ সময় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি-সম্পাদক সহ পদ-পদবী নিয়ে স্থানীয় নেতাকর্মীরা বিতর্কে জড়িয়ে পড়ে। কাউন্সিলররা উপজেলা আ’লীগের সদস্য ইউপি চেয়ারম্যান হযরত আলী তালুকদার এবং স্থানীয় আ’লীগ নেতা আব্দুল হাই আকন্দের(ছোট হাই) পক্ষে দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে বিতর্কে জড়ায়। সমুহ সংঘর্ষের আশঙ্কায় জেলা-উপজেলার অতিথিরা সম্মেলন স্থগিত করেন। নেতৃবৃন্দ চলে যাওয়ার পর উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও গোহালিয়াবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান হযরত আলী তালুকদারের উপর স্থানীয় আ’লীগ নেতা আব্দুল হাই আকন্দের লোকজন অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় উভয় পক্ষে ধাওয়া- পাল্টা ধাওয়া ও ইট-পাটকেল নিক্ষেপে এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।
এবিষয়ে সভাপতি পদপ্রার্থী ও গোহালিয়াবাড়ী ইউনিয়ন আ’লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম জানান, সভাপতি পদে তিনি সহ চারজন প্রার্থী ছিলেন। সংসদ সদস্য সহ জেলা-উপজেলা নেতৃবৃন্দ সভাপতি প্রার্থীদের ঐক্যমতে পৌঁছানোর জন্য বলেন। কিন্তু কাউন্সিলররা ভোট করার দাবি জানান।
এক পর্যায়ে হট্টগোল শুরু হলে নেতৃবৃন্দ সম্মেলন স্থগিত ঘোষণা করে চলে যাওয়ার সময় পেছনে থাকা ইউপি চেয়ারম্যান হযরত আলী তালুকদারের উপর আব্দুল হাই আকন্দের(ছোট ভাই) লোকজন নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়। হামলায় ইউপি চেয়ারম্যান হযরত আলী তালুকদার, আ’লীগ কর্মী শহিদুল ইসলাম, মোমিন তালুকদার ও ওবায়দুল ইসলাম তালুকদার গুরুতর আহত হয়।
স্থানীয় সংসদ সদস্য হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারি জানান, উপজেলার গোহালিয়াবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনে স্থানীয় কাউন্সিলরদের তালিকা নিয়ে জটিলতা দেখা দিলে জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আশরাফুজ্জামান স্মৃতি সম্মেলন স্থগিত করেন। আমরা চলে আসার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.