মির্জাপুরে গরু চোরের দৌরাত্মে নিঃস্ব গ্রামবাসীর সংবাদ সম্মেলন

0 4

মির্জাপুর প্রতিনিধি:

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে গরু চোরদের দৌরাত্মে নিঃস্ব হয়ে কয়েক গ্রামের শতাধিক কৃষক সংবাদ সম্মেলন করেছেন। শনিবার সকালে মির্জাপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে উপজেলার উয়ার্শী ইউনিয়নের উয়ার্শী, দেওলীপাড়া, খৈলসিন্দুর, হালুয়াপাড়া ও রোয়াইল গ্রামের ক্ষতিগ্র¯’ পরিবারের সদস্যরা এই সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগীদের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক উয়ার্শী গ্রামের বাসিন্দা মো. শরীফুল ইসলাম খান। এসময় সেখানে ভুক্তভোগীরা ছাড়াও অন্যদের মধ্যে উপ¯ি’ত ছিলেন, উয়ার্শী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ফরহাদ আলী খান শাহিন, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আসাদুজ্জামান মুরাদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সাইদুর রহমান খান সুফল, লায়ন নজরুল ইসলাম খান কলেজের প্রভাষক এনায়েত হোসেন খান, উয়ার্শী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান খান ছিটু, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম খান প্রমুখ।
লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন, ভুক্তভোগীরা অধিকাংশই বিভিন্ন এনজিও ও ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে গরু কিনে লালন-পালন করেছেন। কিন্ত চোরের দল সেইসব গরু রাতের আঁধারে ট্রাক ও পিকআপ ভ্যানযোগে চুরি করে নেয়ায় তারা এখন নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন। ¯’ানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও থানা পুলিশকে জানিয়েও এ গরু চুরিরোধে কোন সুফল পাওয়া যায়নি বলে তারা বক্তব্যে অভিযোগ করেন।
উয়ার্শী গ্রামের বাসিন্দা বাবর খান বাবু অগ্রণী ব্যাংক ও প্রয়াস এনজিও থেকে ৭০ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে অস্ট্রেলিয়ান একটি গাভী ক্রয় করে লালন-পালন করেন। কিন্ত চোরের দল রাতের আঁধার তার দুই লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকা মূল্যে বড় দুইটি গাভী চুরি করে নিয়ে যায়। এখন সে ঋণের বোঝা নিয়ে চোখে অন্ধকার দেখছেন বলে তিনি সাংবাদিকদের জানান। একই অব¯’া উয়ার্শী গ্রামের রেহেনা আক্তার ও রোয়াইল গ্রামের সমর সিকাদারেরও।
সংবাদ সম্মেলনের লিখিত অভিযোগ করে বলা হয় নিয়মিত ট্যাক্স আদায় করলেও গরু চুরি রোধে ¯’ানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কার্যকরী কোন ব্যব¯’া গ্রহণ করেননি। এছাড়া এ বিষয়ে থানা পুলিশ কোন ভূমিকা পালন করছেন না বলে তারা উল্লেখ করেন।
এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রিজাউল হক শেখ দিপু জানান, ভুক্তভোগীরা আজ থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন। গরু চুরিরোধে বিশেষ পুলিশ টহল ছাড়াও তাদের লাঠি, টর্চলাইট ও বাঁশি সরবরাহ করা হবে। আজকের পর থেকে ওই এলাকায় আর একটি গরুও চুরি হবে না বলে তিনি উল্লেখ করেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.