জামায়াতের মুখপত্র বিলুপ্ত দৈনিক প্রগতির আলোর প্রেসে সরকার বিরোধী জামায়াতের জিহাদী বই ছাপানোর মামলা পূনরুজ্জিবিত করার দাবি

0 2

নিউজ  স্রোতঃ

 

টাঙ্গাইল থেকে প্রকাশিত জামায়াতের মুখপত্র বিলুপ্ত দৈনিক প্রগতির আলো পত্রিকার মধুপুর বার্তা প্রেসে ২০১৪ সালের শেষ দিকে সরকার ও স্বাধীনতা বিরোধী বুকলেট ছাপানোর পর বাধাই করার সময় পুলিশ গোপন সংবাদের ভিক্তিতে উক্ত জামায়াতের জিহাদী বইগুলো জব্দ করাসহ প্রেসটি সিলগালা করা হয়। এছাড়া বিলুপ্ত দৈনিক প্রগতির আলো পত্রিকার তৎকালিন সম্পাদক নাজমুল সাহাদত নোমানকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাকে আদালতের মাধ্যমে ২০১৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্ব জেলহাজতে প্রেরন করা হয়।

পরে রহস্য জনক কারনে মধুপুর থানা পুলিশ জামায়াতের মুখপত্র বিলুপ্ত দৈনিক প্রগতির আলো পত্রিকার তৎকালিন সম্পাদক নাজমুল সাহাদত নোমানকে অব্যাহতি দিয়ে চুড়ান্ত রিপোর্ট আদালতে দাখিল করা হয়। সরকার ও স্বাধীনতা বিরোধী জামায়াতে ইসলামের জিহাদি বই ছাপানোর দায়ে উক্ত পত্রিকার প্রেসটি সিলগালা করে দেয় পুলিশ। কিন্তু কোন অদৃশ্য শক্তিতে নাজমুল সাহাদাত নোমানকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয় । এ প্রশ্ন দেখা দিয়েছে সচেতন মহলের কাছে।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর রাতে বিলুপ্ত দৈনিক প্রগতির আলোর তৎকালিন সম্পাদক নাজমুল সাহাদত নোমান পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়ার পর জিজ্ঞাসাবাদে সরকার ও স্বাধীনতা বিরোধী জামায়াতে ইসলামীর জিহাদি বই ছাপানোর কথা স্বীকার করে। পরে পুলিশ নোমানের কাছ থেকে ২ হাজার পিচ জিহাদি বই উদ্ধার করে। জিজ্ঞাসাবাদে নোমান আরো জানায়, টাঙ্গাইলের জেলা জামায়াতের আমির আব্দুল হামিদের নির্দেশে সরকার ও স্বাধীনতা বিরোধী জামায়াতে ইসলামের জিহাদি বই ছাপানো হয়।

এই জিহাদি বইগুলো সাধারন মানুষের মধ্যে বিলি করে জনগণকে ভূল বুঝিয়ে সংঘঠিত করে সরকার বিরোধী যে কোন ধরনের নাশকতা মুলক কর্মকান্ডে তাদের ব্যবহার করার পরিকল্পনা করা হয়। বর্তমান সরকারের আমলে কি করে বিলুপ্ত জামায়াতের মুখপত্র দৈনিক প্রগতির আলো পত্রিকার সম্পাদক নাজমুল সাহাদত নোমান মধুপুরে তাদের বার্তা প্রেস চালু করে দাপটের সাথে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। এছাড়া প্রকাশ্যে চলাফেরা করছে। এ কারনে জনমনে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। তাই তার বিরুদ্ধে মামলাটি পুনরুজ্জিবিত করার দাবী জানিয়েছেন টাঙ্গাইল জেলাবাসি।
উল্লেখ্য ২০১৮ সালে দৈনিক জনকন্ঠ,বাসস ও চ্যানেল ২৪ এর টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি ইফতেখারুল অনুপমের আবেদনের কারনে পুলিশ সুপারের তদন্ত প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে তৎকালিন জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট ও জেলা প্রশাসক খান মোঃ নুরুল আমিন ২০১৮ সালের ১২ এপ্রিল জামায়াতের মুখপত্র দৈনিক প্রগতির আলো পত্রিকার ডিক্লারেশন বাতিল করেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.