মধুপুরে গারোহাটরে জায়গা অবধৈ দখল মুক্ত করার দাবীতে এলাকাবাসীর আবদেন

0 4

মধুপুর প্রতনিধিঃ

 

টাঙ্গাইলরে মধুপুর উপজলোর বখ্যিাত আনারসরে হাট গারোহাটরে প্রায় সারে পাঁচ একর জায়গা অবধৈ দখলদারদরে কবল থকেে মুক্ত করার দাবীত,েমধুপুর উপজলো সহকারী কমশিনার (ভূম)ি র্কমর্কতা বরাবর আবদেন করছেনে এলাকাবাসী। মঙ্গলবার( ১৪জুলাই) বকিাল ৩টায় এ আবদেন করা হয়।মধুপুর উপজলো সহকারী কমশিনার (ভূম)ি এম. এ. করমি আবদেন পাওয়ার বষিয়টি নশ্চিতি করনে।এলাকার প্রায় শতাধকি ব্যক্তরি গণস্বাক্ষর সহ এ আবদেন টি করনে মোঃশহদিুল ইসলাম সোহলে। তনিি বলনে, ময়মনসংিহ ও টাঙ্গাইল জলোর তনিটি উপজলোর সংযোগ স্থলে এ গারোহাটরে অবস্থান। মধুপুর উপজলোর র্পূব প্রান্ত, ঘাটাইল উপজলোর শষে উত্তরর্পূব প্রান্ত, এবং ফুলবাড়য়িা উপজলোর শষে পশ্চমি প্রান্তরে সংযোগস্থলে এ হাটরে অবস্থান।মূল হাটরে অবস্থান মধুপুর অংশে হলওে কালরে র্আবতে হাটটি ধীরে ধীরে ঘাটাইল অংশে প্রসার ঘটছে।ে ঐতহিাসকি গুইলার পাহাড়রে এ ঐতহ্যিবাহী হাটটি এখন হারাতে বসছেে তার ঐতহ্যি। এ হাট সপ্তাহে দুই দনি বস।েঘাটাইল উপজলোর অংশে সরকার প্রায় র্অধকোটি টাকার উন্নয়ন কাজ করছে।ে অথচ বারবার সরকাররে নকিট গ্রোথসন্টোররে জন্য আবদেন করওে বফিল হয়ছেে এ অঞ্চলরে মানুষ। মধুপুর অংশে কয়কে বছর আগে স্থানীয় ইজারাদাররে মাধ্যমে এ হাটে পানীয় জলরে জন্য একটি টউিবওয়লে ও একটি টয়লটে করছে।েসটোও র্বতমানে ব্যবহার অনুপোযোগী।
মুল হাটটি দখল করে নয়িছেে ভুমদিস্যুরা। এলোমলেো ঘর তুলে আবাসকি এলাকার নামে চলছে নানা অসামাজকি কাজ। ফলশ্রততিে হয়রানরি শকিার হচ্ছে নরিীহ লোক,নষ্ট হতে চলছেে সামাজকি পরবিশে। র্বতমানে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন হয়ছে।ে শক্ষিাদীক্ষায়ও পছিয়িে নইে এ অঞ্চলরে মানুষ।এ হাটরে সখপিুর–কাকরাইদ, পোড়াবাড়-িগারোহাট, গারোহাট-ফুলবাড়ীয়া, গারোহাট-রক্তপিাড়া, গারোহাট-মধুপুর মহাসড়করে পাশে সরকার,ি বসেরকার,ি আধা সরকারি ও স্বায়ত্ব শাসতি বশে কছিু প্রতষ্ঠিান রয়ছে।ে রয়ছেে সোনালী ব্যাংক, ব্যাংক এশয়িা, সটিি ব্যাংক, ডাচ বাংলা, গ্রামীণ ব্যংক, ব্রাক,ব্যুরো টাঙ্গাইল, আশা, প্রশকিা, ট.িএম,এস.এস,স.িস.িড.িব,ি আনন্দসহ এক ডজনরে উপরে এনজি ও এর অফসি ও র্কাযক্রম। রয়ছেে একটি কলজে, দুটি উচ্চবদ্যিালয়, দুটি দাখলি মাদ্রসা, দুটি এবতদোয়ী মাদ্রাসা, একটি সরকারি প্রাথমকি বদ্যিালয়, পাঁচটি কন্ডিার্গাটনে স্কুল।৩৮৩২ নং দাগরে ২ নং খাস খতয়িানরে অর্ন্তভুক্ত প্রায় সাত একর জমি সরকার গারোহাটরে নামে পরেি পরেি ভুক্ত করছে।ে বভিন্নি রাজনতৈকি নতেৃবৃন্দ জবরদখল মুক্ত করে গ্রোথসন্টোর করার প্রতশ্রিতি দলিওে প্রভাবশালী ভুমি দস্যুদরে কাছে নতি স্বীকার করে পছিু হটছেনে।গারোহাটটি এ বছর প্রায় সাত লক্ষ টাকা ইজারা হয়ছে।ে ইতপর্িূবে হাট ইজারার উন্নয়নরে ১৫% টাকা ভোগ করছনে ইজারাদার নজিইে।গারোহাটরে পরেপিরেি ভূক্ত জমরি দখলকার রয়ছেে প্রায় র্অধশতাধকি। হাটরে নইে সুশৃঙ্খল হাট পরচিালনা কমটি।ি হাটরে সূধীজন মনে করনে, সরকার যথাযথ পদক্ষপে গ্রহণ করলে একদকিে যমেন সরকাররে রাজস্ব আয় বাড়ব,ে অপরদকিে স্থানীয় জনগণ পাবে সুষ্ঠ হাট ব্যবস্থাপনা। সব মলিয়িে হাটটি ভূমখিোর ও চাঁদাবাজদরে হাত থকেে মুক্ত করতে তনিি এলাকা এবং হাটরে উন্নয়নরে জন্য উপজলো সহকারী কমশিনার(ভূম)ি র্কমর্কতার হস্তক্ষপে কামনা করনে।এবষিয়ে উপজলো সহকারী কমশিনার (ভূম)ি এম. এ. করমি বলনে,অভযিোগটি গতকাল বকিলেে আমার কাছে এসছে,েবষিয়টি তদন্ত করে দ্রুত ব্যবস্থা নয়ো হব।ে

Leave A Reply

Your email address will not be published.