টাঙ্গাইলে পানিতে তলিয়ে গেছে হাজার একর জমির ধান, দিশেহারা কৃষক

0 14

নিউজ স্রোতঃ

টাঙ্গাইলে অসময়ে যমুনা, ধলেশ্বরী, লৌহজংসহ বিভিন্ন নদ নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় প্লাবিত হয়েছে নিম্নাঞ্চল। এতে কৃষকের হাজার হাজার একর জমির পাকা ধান পানিতে তলিয়ে গেছে। শ্রমিক সংকটে পাকা ধান ঘরে তুলতে না পেরে চরম লোকসানের মুখে পরেছে কৃষকরা। সম্প্রতি বাংলাদেশের উপক‚লীয় অঞ্চলে আম্পান আঘাত হানায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের নদনদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। সেই সাথে লাগাতার বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলে নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর বাসাইল, নাগরপুর, ভূঞাপুর ও টাঙ্গাইল সদরসহ বিভিন্ন উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে কৃষকের হাজার হাজার একর জমির পাকা ধান পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে। মহামারী করোনা ভাইরাসের কারনে শ্রমিক সংকট দেখা দেয়ায় কৃষকরা পড়েছেন চরম সংকটে। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের অভিযোগ কৃষি বিভাগ সময় মত ব্যবস্থা গ্রহণ করলে তলিয়ে যাওয়ার আগেই তারা ধান ঘরে তুলতে পারতেন। মজুরি বেশি ও দীর্ঘ দিন কর্মহীন থাকায় বাধ্য হয়েই পানিতে নেমে ধান কাটছেন তারা। এভাবে ধান কাটায় ঝুঁকির মধ্যে রয়েছেন তারা। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব রকমের ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন। জেলায় এ বছর বোরো ধানের লক্ষ মাত্রা ৬ লাখ ৬৯ হাজার ৫২৯ মে.টন আর সম্ভাব্য উৎপাদন ৬ লাখ ৭১ হাজার ৩৩৫ মে.টন। এখন পর্যন্ত ৭৬ শতাংশ ধান কর্তন করা হয়েছে। আর ৯২ হেক্টর জমির পাকা ধান পানির নিচে নিমজ্জিত। এ বিষয়ে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর এর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্ত ইসমাইল হোসেন বলেন, অন্যস্থান থেকে শ্রমিক ও হারবেষ্টার মেশিন এনে দ্রুত নিমজ্জিত ধান কাটার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আশা করি এ সমস্যা খুব তারাতারি কাটিয়ে উঠতে পারবো।

Leave A Reply

Your email address will not be published.