বাইরে কর্মরতদের ঈদে এলাকায় না আসার জন্য ঘাটাইলে মাইকিং

0 35

ঘাটাইল প্রতিনিধি:
মহামারী করোনাভাইরাস গ্রাস করেছে বাংলাদেশসহ বিশ্ব। আজ ১৬ মে সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্য মতে
টাঙ্গাইল জেলায় করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ৭৫ জন এবং ঘাটাইল উপজেলায় আক্রান্ত হয়েছেন
চারজন, যাদের দুইজন ইতোমধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ঘাটাইলের দেউলাবাড়ী
ইউনিয়নে ঢাকা বা দেশের অন্য কোন যায়গা থেকে ঈদে এলাকায় না আসার জন্য নির্দেশনা প্রদান
করেছেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান।

জানা যায়, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে এক ধরনের আতঙ্ক কাজ করছে ঘাটাইলের জনমনে।
ফলশ্রæতিতে করোনা সংক্রমণ রোধে ব্যাতিক্রম উদাহরণ তৈরি করে এলাকার জনগণকে রক্ষার জন্য
এগিয়ে এসেছেন উপজেলার দেউলাবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম। তিনি নিজ
উদ্যোগে তার নির্বাচনী এলাকায় ঈদের ছুটিতে ঢাকা বা অন্যান্য এলাকা থেকে লোকজনকে এলাকায়
না আসার জন্য উদ্বুদ্ধ করতে আজ দিনব্যাপী মাইকিং করেছেন।

স্থানীয় জহুরুল ইসলাম জানান, আমি আজকে এমন ধরনের মাইকিং শুনেছি। নিঃসন্দেহে এটি একটি
ভালো উদ্যোগ। সামনের ঈদে এলাকার বাইরে কর্মরত লোকজনের ঢল নামতে পারে। এতে
করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি ঘটার বহুল সম্ভাবনা রয়েছে। তাই আমাদের সকলের উচিৎ হবে
আমাদের স্বজনরা যেন এবারের ঈদে বাড়ীতে না আসেন। মহামারি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে
সরকারের সাথে আমাদের সকলের ঐক্যবদ্ধ ভাবে মোকাবেলা করা প্রয়োজন।

এ বিষয়ে দেউলাবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম জানান, আমাদের এলাকার অনেক লোকজন দেশের নানা জায়গায় কর্মরত রয়েছেন। তাদের অনেকের অবস্থান করোনা ভাইরাসের বহুল সংক্রমণ ঘটেছে এমন এলাকায়। তাই আমাদের ইউনিয়নে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধের ব্যবস্থাপনা হিসেবে এবং এলাকায় সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে বর্তমানে বাড়ির বাইরে অবস্থানরত আপনজনদের ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বাড়িতে না আসার জন্য বিশেষ অনুরোধ জানানো হয়েছে। এ জন্য আমাদের ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষেও ব্যক্তিগত উদ্যোগে আজ এলাকায় মাইকিং করে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করা হয়েছে।
তিনি বলেন, এটি সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কোন নির্দেশনা বা চাপিয়ে দেয়া কোন আইন নয়। আমি
জনগণের সেবক হিসেবে জনগণের সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে অন্য এলাকায় কর্মরত লোকজনকে
ঈদের ছুটিতে বাড়ীতে না আসার জন্য অনুরোধ জানিয়েছি, যেন এই এলাকার জনসাধারণ তাদেরকে
ঈদে বাড়ীতে না আসার জন্য উদ্বুদ্ধ করেন। এছাড়াও আমাদের এলাকার লোকজনও যেন অযথা অন্য
এলাকায় বেড়াতে না যান, সে বিষয়টিও স্মরণ করিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমি চাই আমাদের ইউনিয়ন স¤পূর্ণভাবে করোনাভাইরাস মুক্ত থাকুক। সে জন্য
আমাদের উচিৎ সরকারের নির্দেশনা স¤পূর্ণভাবে মেনে চলা। একবার সংক্রমণ ঘটে গেলে সেটি
নিয়ন্ত্রণ কঠিন হয়ে পড়বে। তাই আমাদের উচিৎ করোনা সংক্রমণ যেন না ঘটে এবং এর প্রতিরোধ
ব্যবস্থাকে আরও স্বতঃস্ফ‚র্তভাবে সকলের ঐক্যবদ্ধভাবে মেনে চলা।

Leave A Reply

Your email address will not be published.