টাঙ্গাইল শহরের নিউ মার্কেটের বিভিন্ন ঔষধের দোকানে নেশা জাতীয় লুপেন্টা ও রেজিষ্ট্রেশন বিহীন ঔষধ বিক্রেতাদের ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে দেয়া সাজা দীর্ঘস্থায়ী করার দাবি সচেতন মহলের

0 148

নিউজ স্রোতঃ
মানুষ মানুষের জন্য,জীবন জীবনের জন্য। মানুষ যখন অসুস্থ্য হয়ে পড়ে তখন চিকিৎসকের কাছে যায় জীবন বাচাতে। একজন অসুস্থ্য মানুষকে সুস্থ্য করতে চিকিৎসক তার রোগ নির্নয় করে চিকিৎসা ব্যবস্থাপত্র লিখে দেন। সেই মোতাবেক ঔষধের দোকানে অসুস্থ্য মানুষ ঔষধ ক্রয়ের জন্য হাজির হয়। ঔষধের দোকানদাররা চিকিৎসা ব্যবস্থাপত্র হাতে নিয়েই দাম মিটাতে থাকেন। দোকানদারের চাহিদা অনুযায়ীই চড়া মুল্যে ঔষধ ক্রয় করতে বাধ্য হচ্ছে মানুষ। কিন্তু ঔষধ দোকানদাররা চড়া মুল্য নিয়েই থেমে নেই। এরপর আরো বেশি লাভবান কিভাবে হওয়া যায় তার জন্য অবৈধ পথ বেছে নিচ্ছে টাঙ্গাইল শহরের নিউ মার্কেটসহ বিভিন্ন স্থানে অবস্থিত ঔষধের দোকানদাররা। নেশা জাতীয় লুপেন্টা,রেজিষ্ট্রেশন বিহীন ও মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ মজুদ রেখে দেদারছে তারা বিক্রি করে অবৈধভাবে রাতারাতি মোটা টাকার মালিক হয়ে গেছে টাঙ্গাইল শহরের অনেক ঔষধের দোকানদাররা। তারা যুব সমাজকে ধ্বংস করে দিচ্ছে নেশা জাতীয় লুপেন্ট বিক্রি করে। এছাড়া রেজিষ্ট্রেশন বিহীন ও মেয়াদ উর্ত্তীণ ঔষধতো আছেই তাদের কাছে। তারা মানুষের জীবন ধ্বংস করে হলেও চায় টাকা। কিন্তু এটা কোন ভাবেই টাঙ্গাইলের সচেতন মহল মেনে নিচ্ছেনা। এসব ঔষধ ব্যবসায়ীদের বিরুদ্বে আইনগত ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সচেতন মহল।
শুক্রবার ১৫ মে’ র‌্যাব-১২, সিপিসি-৩, টাঙ্গাইলের কোম্পানী কমান্ডার, মেজর আবু নাঈম মোঃ তালাত এবং ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলাম, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, টাঙ্গাইল কর্তৃক মোবাইল কোর্ট অভিযানের মাধ্যমে ঔষধ আইন ১৯৪০ এর ১৮ (এ) এবং (সি) ধারায় অভিযুক্ত ১। মির্জা গলিব @ রজব আলী (৪৫), মফিজ মেডিকেল হল, নিউ মার্কেট, সদর, টাঙ্গাইলকে ০১ (এক) বছরের কারাদন্ড, ২। মোঃ নুরুন নবী (৫০), নাছির মেডিকেল হল, নিউ মার্কেট, সদর, টাঙ্গাইলকে ০১ (এক) বছরের কারাদন্ড, ৩। কামরুল চৌধুরী (৪৫), মিতা মেডিকেল হক, নিউ মার্কেট, সদর, টাঙ্গাইলকে ০১ (এক) বছরের কারাদন্ড, ৪। মির্জা মানিক (৪০), মফিজ মেডিকেল হল, পিতাঃ মৃত-মির্জা মফিজ উদ্দিন, নিউ মার্কেট, সদর, টাঙ্গাইলকে ৫০,০০০/- টাকা ৫। উত্তম কুমার সাহা (৩৫), উৎসব মেডিকেল হল, নিউ মার্কেট, সদর, টাঙ্গাইলকে ৫,০০০/- টাকা, ৬। গোপিনাথ সাহা (৬০), রাজু ফার্মেসী, নিউ মার্কেট, সদর, টাঙ্গাইলকে ৫,০০০/- টাকা অর্থ দন্ড এবং কারাদন্ড প্রদান করেন। সর্বমোট ০৬ জনের মধ্যে ০৩ জনকে ৬০,০০০/- টাকা অর্থ দন্ড এবং ০৩ জনকে ০১ (এক) বছরের কারাদন্ড প্রদান করেন। তাদের শাস্তি দেয়ায় সাধারন মানুষ কৃতঞ্জতা প্রকাশ করেছেন। টাঙ্গাইল শহরবাসীর দাবি এসব অবৈধ ঔষধ ব্যবসায়ীরা যাতে সহজে করাগার থেকে মুক্তি পেতে না পারে এবং তাদের সাজা আরো দীর্ঘস্থায়ী হয় তার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.