টাঙ্গাইল সদরে প্রথম এক চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত \ জেলায় আক্রান্ত মোট-২৪জন

0 442

নিউজ স্রোতঃ

টাঙ্গাইলে নতুন করে আরো ১ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি সদর উপজেলার ঘারিন্দা ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার। সে টাঙ্গাইল শহরের কলেজ পাড়ায় পরিবার নিয়ে ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। বৃহস্পতিবার দুপুরেই শহরের কলেজপাড়ায় বসবাসরত ওই চিকিৎসকের বাড়িসহ ৬ টি বাড়ি লকডাউন করে সদর উপজেলা প্রশাসন। এ নিয়ে জেলায় মোট ২৪ জনের দেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হল।

অপরদিকে জেলার মির্জাপুর উপজেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। বুধবার দিবাগত রাতে ঢাকা কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ নিয়ে টাঙ্গাইলে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো দুই জন। বৃহস্পতিবার দুপুরে টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. মো. ওয়াহিদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রামপদ রায় বলেন, সদর উপজেলার ওই চিকিৎসকের মাথা ব্যথা ও শরীর কিছুটা দুর্বল হলে মঙ্গলবার নমুনা সংগ্রহ করে পরে বুধবার ঢাকায় পাঠানো হয়। পরে তার নমুনার ফলাফলে পজেটিভ আসে। তিনি করোনার নমুনা সংগ্রহের দায়িত্বে থাকলেও তিনি কোন নমুনা সংগ্রহ করেননি। তিনি আরো বলেন, সে শহরের কলেজ পাড়ায় পরিবার নিয়ে ভাড়া বাসায় থাকতেন। পরে দুপুরেই তাকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়াডে ভর্তি করা হয়েছে। এই প্রথমবারের মতো সদর উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত হলো।

টাঙ্গাইল সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আতিকুল ইসলাম বলেন, সংক্রমন এড়াতে আশেপাশের ৬টি বাড়ী লক ডাউন করা হয়েছে।আগামী ১৪ দিন বাড়ী গুলো লক ডাউনের আওতায় থাকবে। এছাড়া যাতায়াত নিয়ন্ত্রনের জন্য কলেজপাড়ার প্রধান সড়ক বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তিনি দৈনিক কালের স্রোত কে জানান, কলেজপাড়া এলাকায় কেউ প্রবেশ করতে পারবেনা এবং উক্ত এলাকা থেকে কোন মানুষ বের হতে পারবেনা। সকালে টাঙ্গাইল সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আতিকুল ইসলাম কলেজপাড়ায় উপস্থিত হয়ে ৬টি বাড়ী লকডাউন ও কলেজপাড়ার প্রধান সড়ক বন্ধের ঘোষনা দেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.