টাঙ্গাইলে বাজার গুলোতে মানুষের ভীড়, লকডাউন বাস্তবায়নে তৎপর প্রশাসন 

0 76
টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ
টাঙ্গাইলে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে ও ঝুঁকি এড়াতে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।  টাঙ্গাইল সার্কিট হাউজে ৭ এপ্রিল মঙ্গলবার দুপুরে এক জরুরি  সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ওই সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান
জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুর রহমান খান ফারুক, সদর আসনের সংসদ সদস্য মোঃ ছানোয়ার হোসেন, লেঃ কর্নেল মোহাম্মদ সোহেল রানা, পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় (বিপিএম), সিভিল সার্জন ডাঃ মোহাম্মদ ওয়াহীদুজ্জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ মোশারফ হোসেন খান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ শহীদ উল্লাহ, পৌর মেয়র জামিলুর রহমান মিরন, টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সভাপতি জাফর আহমেদ প্রমুখ। লকডাউন চলাকালে টাঙ্গাইল জেলার সীমান্তবর্তী এলাকাসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশের বিশেষ চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। যাতে করে শহরে বা জেলায় কোন গণপরিবহন ও কোন ব্যক্তি যেন প্রবেশ করতে না পারে। আবার কেউ যেন বাইরে থেকে ভেতরে না আসতে পারে। জেলাকে লকডাউন ঘোষনার পর থেকেই আইনশৃংখলা বাহিনী আরো জোরালো অভিযান শুরু করেছে। র‌্যাব সদস্যরা জেলার বিভিন্ন পয়েন্টে চেক পোষ্ট স্থাপন করে জেলায় রোগীবাহী এম্বুলেন্স ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্যবাহী যানবাহন ছাড়া সকল যানবাহন এবং জনগনের প্রবেশ ও বের হওয়া বন্ধে কঠোর অবস্থান নিয়েছেন। জেলা প্রশাসনের সাথে যৌথভাবে কাজ করছে সেনাবাহিনী, পুলিশ বিভাগ, র‍্যাব’ সংবাদকর্মী’সহ সংশ্লিষ্টরা। শহরের পার্কবাজার, সহ অন্যান্য কাঁচা বাজার এবং হাট গুলোতে এখনো মানুষের ভীড় দেখা যাচ্ছে। মানুষ সামাজিক দূরত্ব না মেনেই বাজার করছে। বিভিন্ন ঝোপেঝাড়ে ও অলিতে গলিতে বাইরে বাঁশের বেড়া দিয়ে লগডাউন করে বসছে চায়ের ভ্রাম্যমাণ দোকান ও চুল কাটার ভ্রাম্যমান  সেলুন। নিরাপদ সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে কাজ করছে প্রশাসন। কিছু কিছু জায়গায় জরিমানা করেও জনসমাগম প্রতিরোধ করা যাচ্ছে না। সচেতন অনেকেই মনে করছেন সরকারি নির্দেশনা মেনে, নিজে ভালো থাকতে এবং অপরকে ভালো রাখতে সকলেরই নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করা উচিত।

Leave A Reply

Your email address will not be published.