জঙ্গি দমনে পুলিশের ভূমিকায় ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে: পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী

0 189

একজন মানবিক পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী  গল্প–হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজ: বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর অর্জনের পাল্লা, সুনামের খাতা প্রতিনিয়ত বেড়ে যাচ্ছে। পুলিশ বাহিনীর অর্জনের আড়ালে, বিহাইন্ড দ্য সিনে অন্যতম প্রধান মাস্টারমাইন্ড যিনি তার দায়িত্বের জায়গা থেকে পুলিশ বাহিনীর জন্য সর্বোচ্চভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।
একজন নেতা যেমন কর্মীদের অনুপ্রেরণা দিয়ে নেতৃত্ব প্রদান করে সংগঠনকে এগিয়ে নিয়ে যান, একজন কোচ যেভাবে কনফিডেন্স লেভেল তৈরি করে শিষ্যের কাছ থেকে সেরাটুকু বের করে নিয়ে আনেন একইভাবে তিনি  অফিসারদের কনফিডেন্স লেভেল তৈরি করে কাজ করিয়ে নেন।                                   শত বিপদে, প্রতিকূলতার মধ্যে যিনি বট গাছের ন্যায় আগলে রাখেন অধীনস্থ পুলিশ কর্মকর্তা, সদস্যদের। পুলিশের কাজের যে গতিশীলতা, সফলতা সবকিছুর পেছনে ক্রেডিট এই মানুষটার নাম পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী ।                                            নাগরিক সেবা ও জননিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রতিনিয়ত পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী নির্দেশে বিভিন্ন পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি পুলিশ বাহিনী ।                                                                    বেশকিছুদিন আগে পুলিশ শাসক নয়- জনগণের সেবক’ এই মন্ত্রে জনসাধারণকে উজ্জীবিত করছেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেছিলেন ।                                                 পুলিশ বদলে যাচেছ প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনায় ত্রবং আইজিপি ড.মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী সক্ষমতায় ।                                                                পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেছেন, ‘পুলিশকে জনগণের আস্থা এবং বিশ্বাস অর্জন করতে হবে। ভালো ব্যবহার করতে হবে। দ্রুত সময়ে জনগণকে সেবা দিতে হবে। আইজিপি বলেন, থানা হলো পুলিশি সেবা প্রদানের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ইউনিট। থানায় কর্মরত পুলিশ সদস্যদেরকে জনগণের সেবায় আত্মনিয়োগ করতে হবে। বাংলাদেশ পুলিশকে গণমুখী তথা জনগণের পুলিশে পরিণত করাই এ কর্মশালার লক্ষ্য।                পুলিশের কোনো দোষত্রুটি দেখলে সমালোচনার আহ্বান জানিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। তিনি বলেন, দেশের কোনো থানায় সেবা নিতে গিয়ে টাকাপয়সা দাবি করলে কিংবা নিরীহ কোনো লোক হয়রানির শিকার হলে পুলিশ সদর দপ্তরে অথবা জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে অবহিত কিংবা অভিযোগ প্রদান করা যাবে।                    পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেছেন, আমরা পুলিশকে জনগণের কাছে নিয়ে যেতে চাই। থানাকে জনগণের বিশ্বাস ও আস্থার জায়গা হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। আমরা মানবিক পুলিশ হতে চাই, জনগণের পুলিশ হতে চাই।                                                                    আইজিপি বলেন, ‘আপনারা যে রকম পুলিশ চান, সে রকম আপনাদের স্বপ্নের পুলিশ হতে চাই। শত বাধা–বিপত্তি সত্ত্বেও পুলিশকে নিয়ে যেতে চাই আপনাদের দোরগোড়ায়।’

পুলিশ জনগণের ভাই, বন্ধু, আত্মীয়, সন্তান- এ কথা উল্লেখ করে পুলিশ-প্রধান বলেন, ‘পুলিশ অন্য কোনো গ্রহ থেকে আসেনি- এটা যাতে হয়, আমরা সে চেষ্টা করছি।’ এ জন্য তিনি জনগণের সহযোগিতা কামনা করেন।              বেশকিছুদিন আগে পুলিশ শাসক নয়- জনগণের সেবক’ এই মন্ত্রে জনসাধারণকে উজ্জীবিত করছেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেছিলেন । আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পুলিশ বাহিনী প্রতিটি ক্ষেত্রে দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে। পুলিশ জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করেছে বলেও জানান তিনি।                      পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী অনেক ভালো কাজ করছেন  । সচ্ছতা-জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণসহ বেশকিছু অসঙ্গতি ও সমস্যা দূর করতে অক্লান্ত কাজ পুলিশের অপরাধ ঠেকাতে জিরো টলারেন্স করে যাচ্ছেন ।অনেক দুর্নীতি পরায়ন মানুষ ত্রটা পচছন করছেন না ।এতে কোন কোন জনপ্রতিনিধি সমালোচনা করছেন। সমালোচনার কোন কারণ দেখিনা। পুলিশ ভালো কাজ করলে এর সুফল পুলিশ ভোগ করেনা।বরং সাধারণ জনগণ ও জনপ্রতিনিধিরা ভোগ করেন। কাজেই সমালোচনা না করে পারস্পরিক সমন্বয় এবং সহায়তার মাধ্যমে কাজ করাই সবার জন্য মংগলজনক।                                                                                     বেশকিছুদিন আগে পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেছিলেন পুলিশ রক্ষক না হয়ে ভক্ষক হলে তাকেও আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে। কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নয় । সচ্ছতা-জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণসহ বেশকিছু অসঙ্গতি ও সমস্যা দূর করতে অক্লান্ত কাজ পুলিশের অপরাধ ঠেকাতে জিরো টলারেন্স করে যাচ্ছেন ।                                         বাংলাদেশের ত্রকজন সফল ত্রবং সৎ পুলিশ আইজিপি হিসাবে ত্রখন সৎপুলিশ কর্মকর্তাদের সারাদেশে ছড়িয়ে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছেন ।              প্রথমে প্রধানমন্ত্রীকে অশেষ ধন্যবাদ বাংলাদেশ এখন আর বড় বড় রাঘববোয়ালরা ছাড় পাবে না দুর্নীতি করে এবং এভাবে করে ধারাবাহিকভাবে আরো যারা দুর্নীতি করে যাচ্ছে তাদেরকে ধরা হোক । এভাবে  প্রতিটি স্তরের মানুষদের ধরতে থাকলে একসময় দেশটি সোনার দেশে পরিনত হবে ।
ধন্যবাদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ত্রবং পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীকে -স্যালুট আপনাদের সাহসীকতাকে।                 সচ্ছতা-জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণসহ বেশকিছু অসঙ্গতি ও সমস্যা দূর করতে অক্লান্ত কাজ পুলিশের অপরাধ ঠেকাতে জিরো টলারেন্স করে যাচ্ছেন
ত্রবং জঙ্গি দমনে পুলিশের ভূমিকায় ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে: পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বললেন মোঃ আনোয়ারুল হক(পদায়ন ত্রসপি মৌলভীবাজার )।

Leave A Reply

Your email address will not be published.