tabgail-mbstu-bsl-misil-pic-1-copy

মাভাবিপ্রবি ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদককে বহিস্কারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল

tabgail-mbstu-bsl-misil-pic-1-copyসংবাদ ¯্রােত :
বিবাহিত হওয়া স্বত্তেও তথ্য গোপন রেখে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক ও একসময়ের তুখোড় ছাত্রদল কর্মী হয়েও যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক পদ পাওয়ায় বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের একাংশ। ফেসবুক ভাইরালের মাধ্যমে এমন তথ্য ছড়িয়ে পরেছে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ সাইদুর রহমান ও যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক রাজিব মোল্লার বিরুদ্ধে। এর প্রতিবাদে ও তাদের বহিস্কারের দাবিতে মঙ্গলবার দুপুরে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও পথসভা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের একাংশ। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের সামনে থেকে শুরু হয়ে পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এক সংক্ষিপ্ত পথসভার মাধ্যমে শেষ হয়। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল বিক্ষোভকারীদের বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় বাধা প্রদান করে। বিক্ষোভকারীদের সাথে কথা বলে পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর তাদেরকে প্রটোকল দিয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নিয়ে যান।
এসময় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের পদ বঞ্চিত নেতা কর্মীদের মধ্যে নুরনবী হোসেন, দুরুল হুদা সাদ্দাম, গালিব আহমেদ, মোঃ ওমর ফারুক, নাজিম উদ্দিন, মানিক শীল বক্তব্য রাখেন। বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগে বিবাহিত ব্যক্তিদের কোন জায়গা নেই। সাইদুর রহমান তার বিয়ের তথ্য গোপন করে পদের লোভে ছাত্রলীগের সাথে প্রতারনা করেছেন। রাজিব মোল্লা যিনি বিএনপি জামায়াতের এজেন্ট। তিনি ২০১৪ সালের ৫জানুয়ারি নির্বাচনের আগের রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ফেইসবুকে) ওই নির্বাচনকে প্রহসনের নির্বাচন বলে আখ্যায়িত করে সকল জনগণকে ভোট না দিতে প্রতিজ্ঞা করার আহ্বান জানান। এসময় বক্তারা আরও বলেন, আমরা ছাত্রলীগের সাধারন কর্মীরা সাইদুর ও রাজিব মোল্লার মত বিবাহিত, মিথ্যাবাদী, প্রতারক, বেঈমান ও বিএনপির এজেন্টদের বঙ্গবন্ধুর নিজ হাতে গড়া সংগঠনের নেতৃত্বে দেখতে চাই না। অবিলম্বে তাদেরকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের মত গৌরব ও ঐতিহ্য বহনকারী সংগঠন থেকে বহিস্কার চাই।
এ প্রসঙ্গে মাভাবিপ্রবি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ সাইদুর রহমান তার বিরুদ্ধে আনিত বিয়ের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তাদের নিয়ে বিএনপি জামায়াত চক্রের কিছু সদস্য এ ষড়যন্ত্রে নেমেছে বলেও দাবি করেন তিনি।
যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক রাজিব মোল্লা ব্যক্তিগত মুঠোফোন নম্বর ০১৯১৫-৩৯২০৫৫ বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য গ্রহণ করা সম্ভব হয়নি।
উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ সাইদুর রহমান ২০১৩ সালের ২০ই মে মাহ্ফুজা আক্তার রাখি নামের এক মেয়েকে টাঙ্গাইল নোটারী পাবলিকের সম্মুখে হাজির হয়ে এক লাখ বিশ হাজার টাকা দেন মোহর ধার্য্য করে বিবাহ করেন। রাজিব মোল্লা যিনি বিএনপি জামায়াতের এজেন্ট। তিনি ২০১৪ সালের ৫জানুয়ারি নির্বাচনের আগের রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ফেইসবুকে) ওই নির্বাচনকে প্রহসনের নির্বাচন বলে আখ্যায়িত করে সকল জনগণকে ভোট না দিতে প্রতিজ্ঞা করার আহ্বান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Protected by WP Anti Spam