mp-rana-pic-copy

টাঙ্গাইলের ফারুক হত্যা মামলার স্বাক্ষ্যগ্রহণের দিন দ্বিতীয় দফায় পেছালো

mp-rana-pic-copyসংবাদ স্রোত :

টাঙ্গাইলে মুক্তিযোদ্ধা ফারুক হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ হয়নি। এ নিয়ে এ মামলার ধার্য দিন দ্বিতীয় দফায় পেছালো। এ স্বাক্ষ্যগ্রহণের পরবর্তী দিন ধার্য করা হয়েছে আগামী ২৭ নভেম্বর।

মুক্তিযোদ্ধা ফারুক হত্যা মামলার মূল আসামী ঘাটাইল (৩) আসনের বর্তমান এমপি আমানুর রহমান খান রানা কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ থেকে অসুস্থ্য জনিত কারণে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকাসহ তাকে হাজির করা সম্ভব হয়নি বলে এ স্বাক্ষ্যগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়নি।

বুধবার সকালে টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতে এই বিচার কার্য শুরু হয়।
এই মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পিপি মনিরুল ইসলাম খান জানান, আদালতের বিচারক আবুল মনছুর মিয়া সকাল ১১টায় এজলাশে বসেন ও প্রথমেই চাঞ্চল্যকর এই হত্যা মামলার কার্যক্রম শুরু করেন। রাষ্ট্রপক্ষ মামলার বাদি নাহার আহমেদ, ছেলে আহমেদ মজিদ সুমন ও মেয়ে ফারজানা আহমেদ মিথুনের হাজিরা দাখিল করেন। কিন্তু মূল আসামী উপস্থিত না থাকায় রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামী পক্ষের শুনানী শেষে বিচারক মামলার পরবর্তী স্বাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য্য করেন ২৭ নভেম্বর। এ মামলায় তাকে সহযোগিতা করেন এডভোকেট আব্দুল গফুর ও এডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের। অপরদিকে আসামী পক্ষের আইনজীবী ছিলেন এডভোকেট আব্দুল বাকি, জহিরুল ইসলাম জহিরসহ কয়েকজন।
উল্লেখ্য,টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের এমপি আমানুর রহমান খান রানাকে অসুস্থতার কারণে আদালতে হাজির না করায় ইতিপূর্বে আটবার এই মামলার অভিযোগ গঠণের শুনানী পিছিয়ে যায়। এরপর গত ৬ সেপ্টেম্বর মামলাটির অভিযোগ গঠণ করা হয়। একই সাথে স্বাক্ষ্যগ্রহণের প্রথম দিন ছিল ১৮ অক্টোবর তবে তিনি অসুস্থ্য জনিত কারণে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় এর পরবর্তী দিন ধার্য হয় ১ নভেম্বর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Protected by WP Anti Spam